Technology
Trending

গুগল কি? গুগল এর জনক কে ? Learn About Google

What is google? What is the born of google

আপনারা কি জানেন বা জানতে চান যে Google এর মূল উদ্দেশ্য কি বা গুগল কি? তাহলে চলুন আজকে গুগল সম্পর্কে জেনে নিই। গুগল একটি ইন্টারনেট ভিত্তিক সার্চ ইন্জিন যার মূল উদ্দেশ্য হলো তাদের ওয়েব সার্ভারের মাধ্যমে তাদের ইনডেক্স সিস্টেমের মাধ্যমে বিভিন্ন ওয়েবসাইট কে অনুসন্ধান করা এবং তাদের সেইসব ওয়েবসাইটের ডাটা কালেক্ট করা। গুগল মূলত এসব ডাটা অনুসন্ধান করে তাদের Google Index এর মাধ্যমে। ইনডেক্সকৃত ডাটার মধ্যে রয়েছে অডিও ভিডিও ফাইল, টেক্স, ইমেজ বা ছবি, পিডিএফ বা অন্যান্য এক্সটেনশন। ১৫ সেপ্টেম্বর ১৯৯৭ সালে ল্যারি পেজ এবং সের্গেই ব্রিন এবং স্কট হাসান এর মাধ্যমে যাত্রা শুরু করে গুগল।

খুব সহজে ভাষায় গুগল কি?

গুগল একটি সার্চ ইন্জিন যেটি ১৯৯৬ সালে Sergey Brin এবং Larry Page স্ট্যানফোর্ড ইউনিভার্সিটিতে গবেষণা গুগল নিয়ে গবেষণা করতে থাকেন, গুগলের মাধ্যমে ইন্টারনেটের সমস্ত ফাইল খোজার জন্য প্রচুর পরিমানে গবেষণা করা হয়। পরবর্তীতে গবেষণার ফলাফল যখন ভালো হয় তখন ল্যারি পেজ ও সের্গেই ব্রিন সার্চ ইন্জিনের নাম বদলিয়ে Googol শব্দ থেকে Google করার সিধান্ত নেন।

গুগল সবচেয়ে জনপ্রিয় বা সেরা সার্চ ইন্জিন কেনো?

অনলাইন জগতে গুগল প্রথমবারের মত স্পেশাল এবং দ্রুতগতির Google Search Engine তৈরি করে বিশ্বকে তাক লাগিয়ে দেন। গুগলের নির্ভুল অনুসন্ধান মানুষকে মুগ্ধ করে তোলে। তারপর যখন গুগল ইমেইল সিস্টেম চালু করলে এবং খুবই কম সময়ে চোখের নিমিষেই বার্তা আদান-প্রদান করা যায় তখন Goo আরো বেশি জনপ্রিয় হয়ে যায়।

গুগলের কিছু মূল প্রডাক্টের তালিকা:

  • ইন্টারনেট সার্চ ইন্জিন।
  • ওয়েব মেইল।
  • নিউজ সংবাদ।
  • ক্যালেন্ডার সফটওয়্যার।
  • স্প্রেডশীট।
  • সুইট প্রোডাক্টিভিটি অ্যাপ্লিকেশন।
  • ওয়ার্ড প্রসেসিং এবং ফটো এডিটিং সফটওয়্যার।
  • ক্লাউড স্টোর (গ্রাহক)
  • ক্লাউড স্টোর (ব্যবসা)

গুগলের আরো কিছু জনপ্রিয় পণ্য তালিকা:

  • গুগল পিক্সেল।
  • গুগল পিক্সেল 4a এবং 4a 5G.
  • গুগল Nest Hub Max.
  • গুগল Nest Learning Thermostats.
  • গুগল Pixel Buds এবং Buds A.

গুগলের আরো কিছু সার্ভিস বা প্রডাক্ট সম্পর্কে ব্যাখা করা হলো:

অ্যান্ড্রয়েড- বিশ্বের সবচেয়ে সর্বাধিক স্মার্টফোন অপরেটিং সিস্টেম হলো অ্যান্ড্রয়েড। গুগল সব কোম্পানির অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেম কে লাইসেন্সের মাধ্যমে সার্পোট ও সিকিউরিটি দিয়ে থাকে।

ক্রোমবুক- এটি একটি তাদের নিজিস্ব অপারেটিং সিস্টেম। মূলত তাদের ল্যাপটপে এই অপারেটিং সিস্টেম (OS) দিয়ে থাকে।

ক্রোম- কম্পিউটার এবং অন্যান্য অপারেটিং সিস্টেমে ক্রোম বিল্ট ইন অবস্থায় থাকে, যা ব্রাউজার হিসবে কাজ করে।

গুগল অ্যাডওয়ার্ড- এটি একটি Google Ads Network System. এটির মাধ্যমে কোম্পানির বিজ্ঞাপন পরিষেবা প্রদান করেন।

Google Alerts- গুগল মেইলে স্পামিং ঠেকানোর জন্য এটি কাজ করে।

গুগল অ্যানালিটিক্স- এটি একটি চমৎকার ফাংশন। এটির মাধ্যমে একটি ওয়েবসাইটের সমস্ত কিছু অনুসন্ধান করা যায়। যেমন: প্রতিদিন কি পরিমান ভিজিটর আসে, কোন দেশ থেকে আসতেছে, তারা কি ডিভাইস ব্যবহার কর, কতজন ছেলে কতজন মেয়ে, কত সময় ধরে ভিজিট করছে। এছাড়া আরও অনেক কিছু জানা যায়।
গুগল কি সম্পুর্ণভাবে ফ্রি?
সাধারণ উজারদের জন্য গুগলের সার্চইন্জিন, ইমেইল সহ অন্যান্য সবকিছুই ফ্রি তবে Google এর ড্রাইভ নির্দিষ্ট সীমা পর্যন্ত ফ্রি।

গুগল অ্যাপ ইন্জিন- এটি গুগলের সমস্ত সফটওয়্যার সঠিকভাবে পরিচালনা করার জন্য তাদের নিজিস্ব একটি ইন্জিন।

গুগল অ্যাসিস্ট্যান্ট- গুগলের সহকারী। যা মানুষের কথা অনুযায়ী কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা দিয়ে সাড়া প্রদান করে।

গুগল ব্লগ- এটির মাধ্যমে গুগলের সব প্রডাক্টের নিয়ম কানুন, ট্রামস কন্ডিশন পাবলিশ করে। এবং প্রডাক্টের ইউজার গাইডলাইন দেওয়া হয়, রক্ষণাবেক্ষণ পরিচর্যা প্রদানকারী নিদেশ ইজারদের কাছে পাবলিশ করা হয়।

Google Books- এটির মাধ্যমে তাদের বিভিন্ন টেকনোলজি সম্পর্কে এবং নতুন চিন্তাভাবনা অতীত বর্তমান ভবিষ্যতের কার্যকলাপ লেখা হয়। বিশ্বকে টোকনোলজি এবং তাদের নিজেদের সম্পর্কে জানান দেয়।

গুগল ক্যালেন্ডার- এটি গুগলের একটি অ্যাপ্লিকেশন যাতে দিন তারিখ সময় বছর উল্লেখ থাকে তাছাড়া ক্যালেন্ডারের মধ্যে কিছু অ্যাডভান্স ফাংশন থাকে যেমন: আপনার পরিবারে কেউ বা স্বজন, প্রতিবেশী বন্ধু বান্ধবের জন্মদিন, মৃত্যুদিন, বিবাহ বার্ষিকী বা অন্যান্য যেকোন দিন Remainder দিয়ে রাখতে পারবেন। বিশেষ দিন তারিখ সময়কে চিহ্নিত করে রাখতে পারবেন।

Google Class Room- আমারা জানি ক্লাস করতে হলে আমাদের স্কুল কলেজ বা বিশ্ববিদ্যালয়ে যেতে হয় কিন্তু গুগলের এই চমৎকার আবিষ্কারে এখন বাড়িতে বসে গুগল ক্লাস রুম অ্যাপের মাধ্যমে শিক্ষকের সাথে ক্লাস করা যায় বন্ধুদের সাথে গ্রুপ স্টাডি করা যায়।

Google Cloud- এটা একটি অনলাই মেমরি বা স্টোরেজ। এখানে নিজের পারোসনাল ডাটা ফাইল স্টোর ব্যাকআপ রাখা যায়।

গুগল ডেভলপার- এটি গুগলের সমস্ত প্রডাক্ট, সার্ভিস, ইভেন্ট ডকুমেন্টেশন ইত্যাদি নথিকরণ জায়গা।

Google Docs- এটির মধ্যে আপনার প্রয়োজনীয় তথ্য রাখতে পারবেন এবং Micro Soft word সহ অন্যান্য ফাইল ওপনে ইডিট ভিউ করতে পারবেন।

Google Drive- এটি অনলাইন মেমরির মত যা ক্লাউডের মতই। এখানে একটি নিধারিত সীমা (15 GB) পর্যন্ত ফ্রিতে ব্যবহার করতে পারবেন, আরো বেশি জায়গা লাগলে কিনে নিতে হবে।

Google Due- এটি অ্যান্ড্রয়েড মোবাইলে বিল্টইন Application হিসেবে থাকে। ভিডিও কলিং এর মাধ্যমে অন্যান্য ডিভাইসের এক্সেস নেওয়া যাবে।

অনলাইনে ইনকাম করার ১১ ট্রিক্স- Online income

Google Earth- এটি একটি মজাদার অ্যাপ্লিকেশন। এটি পৃথিবীর যেকোন মানুষকে যেকোন জায়গাকে ক্যামেরার ছবির মত দেখতে সাহায্য করতে, অনেকটাই ম্যাপের মত।

গুগল ফন্ট- লেখালেখি করার জন্য ফন্টের বিভিন্ন স্টাইল Google ডিজাইন করে রাখছে। এইসব ফন্ট ব্যবহার করে লেখাকে আরো সুন্দর করে তোলা যায়।

Google Lens- এটির মাধ্যমে কোন চিত্র বা বস্তুকে লক্ষ করা হয়। সেই অনুযায়ী Similar কিছু প্রর্দশন করে এবং লেন্স এ ধারণকৃত বস্তু সম্পর্কে কোন তথ্য ইন্টারনেটে থাকলে সেটা অনুসন্ধান করে।

গুগল ম্যাপ- এটি সম্পর্কে আর কি বলবো। প্রত্যেকটা অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেমে দেওয়া হয়। অচেনা জায়গা কে চেনাতে সাহায্য করে, বর্তমান এটি মডিফাই করে অনেকেই অনুসন্ধানের কাজ চালাচ্ছে।

Google Meet- এটি একটি ভিডিও কলিং সফটওয়্যার, যার মাধ্যমে একাধিকা জন একসাথে একই সময়ে যুক্ত হয়ে মিটিং বা অলোচনা করা হয়। বর্তমানে খুব জনপ্রিয় গুগল মিট অ্যাপ্লিকেশন। ঘরে বসে শিক্ষক শিক্ষিকা বা বিভিন্ন প্রকারের প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা বৃন্দুরা আলোচনা করে।

Google Moon- এটির মাধ্যমে চাঁদ দেখা চাদ নিয়ে গবেষণা, উত্তলন অবতরণ বিষয়ে জানা যায়।

গুগল নিউজ- এটির মাধ্যমে বিভিন্ন জনপ্রিয় খবর দেশ ভিত্তিক মানুষের ফোনে নেটওয়ার্ক কানেকশনের মাধ্যমে অটোমেটিক নোটিফিকেশন দেয়।

গুগলের আরো যেসব ছোটবড় অ্যাপ্লিকেশন প্রডাক্ট বা সার্ভিস রয়েছে:

  • Google now
  • Google pixels
  • Google photos
  • Google play
  • Google pow
  • Google parents
  • Google sheets
  • Google scholar
  • Google play music
  • Google toolbar
  • Google shopping
  • Google site
  • Google slider
  • Google translate
  • Google sms
  • google trends
  • google street view
  • google wallet
  • google voice
  • google web master tools
  • google video
  • google url shortener

গুগল মূল উর্পাজন কি?

গুগলের ইনকামের প্রধান সোর্স হলো বিজ্ঞাপন। Google Adsense নামক পরিষেবার মাধ্যমে অর্থ জেনারেট করে থাকে। কোম্পানির মালিকরা তাদের পণ্যের বিজ্ঞাপন খুব দ্রত মানষের কাছে পৌছানোর জন্য গুগলে টাকা দেয় এবং গুগল সেই বিজ্ঞাপন গুলি বিভিন্ন ওয়েবসাইটের মালিকের সাথে শর্তসাপেক্ষে তাদের ওয়েবসাইটে বিজ্ঞাপন প্রর্দশন করেন। তাছাড়া তারা অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেম লাইসেন্স, প্লে-স্টোর, ক্লাউড স্টোর ও ড্রাইভ এর মাধ্যমে উপার্জন করে।

গুগলের জিমেইল কি বন্ধ হয়ে যাবে?
তারা নিশ্চিত করেছিলেন যে জনপ্রিয় ইমেইল অ্যাপ ২০১৯ সালে বন্ধ ঘোষণা করবেন কিন্তু ২০২১ সালে এসেও তা বন্ধ হয়নি তবে পরবর্তীতে কি করবে সেটা নির্দেশনা না আসা পর্যন্ত সঠিকভাবে বলা যাবে না।

জিমেইল কি ফ্রিতে ব্যাবহার করা যাবে?
হ্যা। আপনি সম্পুর্ণ বিনামুল্যে জিমেইল সেবা ব্যবহার করতে পারবেন তবে কোম্পানির নামের সাথে মিল রেখে কাষ্টম মেইল বা ডোমেইন তৈরি করতে হলে অর্থ প্রদান করতে হবে। ৯৯.৯৯% সঠিক সেবার মাধ্যমে ২৪ ঘন্টা কোন বিজ্ঞাপন ছাড়াই এটি কোম্পানির ব্যক্তিগত কাজে ব্যবহার করতে পারবেন।

জিমেইল ছাড়া আর কি কি ই-মেইল আছে?
জিমেইল ছাড়াও আরও কিছু ইমেইলে সিস্টেম রয়েছে যা নিচে উল্লেখ করা হলো:

  • Outlook.
  • Zoho Mail.
  • Yandex.
  • Tutanota.
  • ProronMail.
  • Mailbox Org.
  • GMX.
  • iCloud Mail.

জিমেইল কি আউটলুকের চেয়ে নিরাপদ?
দুটি পরিষেবাই খুবই নিরাপদ। তারা তাদের ইউজারদের কে ৯০.৯৯% সুরক্ষা প্রদার করে থাকেন। আর অন্যান্য ই-মেইল সংস্থাগুলিও সিকিউরিটির জন্য অত্যান্ত জোরদার।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button